কুলাউড়ায় আইনগত সহায়তা প্রধান বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

0
17

আইনগত সহায়তা প্রধান বিষয়ে মতবিনিময় সভা

আশরাফুল ইসলাম জুয়েল : “বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায়, শেখ হাসিনার অবদান, বিনামূল্যে লিগ্যাল এইডে আইনী সেবাদান”। গরীব দুঃখী অসহায় মানুষদের দেওয়ানী, ফৌজধারী ও পারিবারিকসহ সকল প্রকার মামলায় সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার পরিচালক ও সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, অন্যান্য সম্প্রদায়ের চেয়ে চা-শ্রমিকরা বেশ অনগ্রসর ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী। তারা প্রায়শই আইনী সেবা থেকে বঞ্চিত থেকে যান। এবার তাদের জন্য সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সরকারি খরচে আইনী সহায়তার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে জেলা লিগ্যাল এইড অফিস। রোববার (১৪ ফেব্র“য়ারি) দুপুরে কুলাউড়া গাজীপুর এন্ড মির্জাপুর টি এস্টেটস্ লিঃ প্রাঙ্গণে মৌলভীবাজার জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের আয়োজনে ও ব্রাক, মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচীর সহযোগিতায় আয়োজিত সরকারি আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ সাইফুল ইসলাম আরো বলেন, সরকারি আইনি সেবা সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করা, চা-শ্রমিকসহ দরিদ্র ও অসহায় জনগণের ন্যায়বিচার প্রাপ্তি নিশ্চিত করাই হলো আমাদের মূল লক্ষ্যে। আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল, সহায় সম্বলহীন এবং নানাবিধ আর্থ সামাজিক কারনে বিচার প্রাপ্তিতে অসমর্থ ব্যক্তিগনের আইনী অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য জেলা লিগ্যাল এইড অফিস কাজ করে যাচ্ছে। যদি কেউ কোন বিরোধে জড়িয়ে পড়েন তাহলে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে যোগাযোগ করবেন। সেখান থেকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে বিরোধটি নিষ্পত্তি করা হবে। আর বিরোধ নিষ্পত্তি না হলে আইনী সহায়তার জন্য আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেয়া হবে। তখন মামলা পরিচালনার যাবতীয় খরচ সরকার বহন করবে। জনগণকে আইনগত অধিকার বিষয়ে সচেতন করা, সরকারি আইন সহায়তা কার্যক্রম আরো কার্য্যকর, বিস্তৃত ও শক্তিশালী করা, বেসরকারি এনজিং সংস্থা ব্রাকের উদ্যোগে আমরা আইন সহায়তা কার্যক্রম আরও গতিশীল ও কার্যকর করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। জনগণকে আইনী সেবা দিয়ে মৌলভীবাজার জেলাকে আইন সহায়তায় মডেল জেলা হিসেবে গড়তে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করতে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ একেএম সফি আহমদ সলমানের সভাপতিত্বে ও জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার সরকার হাসান শাহরিয়ারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার উপ-পরিচালক হাবিবুর রহমান চৌধুরী, ব্রাকের মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচীর প্রোগ্রাম কো অর্ডিনেটর মোঃ একরামুল হক, সিনিয়র স্টাফ আইনজীবী মোঃ নাজমুল হক, জোনাল ম্যানেজরা এবিএম জাহিদুল হাসান, জেলা ব্যবস্হাপক ব্র্যাক মানবাধিকার আইন সহায়ক কর্মসূচি শ্রীমঙ্গল শাখার মনির হোসেন। গাজীপুর এন্ড মির্জাপুর টি এস্টেটস্ লিঃ এর ব্যবস্থাপক শেখ কাজল মাহমুদ, কুলাউড়া থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আমিনুল ইসলাম, ব্রাকের জেলা সম্বন্বয়কারী ইলিমেন্ট হাজং, গাজীপুর চা-বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি অশোক গোয়ালা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম সফি আহমদ সলমান বলেন, কুলাউড়ায় ১৯টি চা-বাগানে প্রায় ৩০ হাজারেরও বেশি চা-শ্রমিক রয়েছে। ওই সকল চা-শ্রমিকদের মধ্যে যারা আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ও অধিকার বঞ্চিত তাদের আইনী সহায়তা প্রদানের জন্য জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের এ উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা, আপোষ মিমাংসা, সালিশি বা আইনী সহায়তার মাধ্যমে যেন চা-শ্রমিকরা আইনী সেবা প্রায় সেই বিষয়ে কার্যত ভূমিকা রাখার জন্য জেলা লিগ্যাল এইড অফিস ও ব্রাকের মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচীর নেতৃবৃন্দের প্রতি অনুরোধ রাখেন তিনি।