শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস

স্টাফ  রিপোর্টারঃশীত জেঁকে বসেছে শ্রীমঙ্গলে। বইছে মৃদু শৈত্য প্রবাহ। শৈত প্রবাহের কারনে শ্রীমঙ্গলে আজ বেশ শীত অনুভুত হচ্ছে।  শ্রীমঙ্গলে আজ বৃহস্পতিবার  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ১২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আজ সারাদিন শ্রীমঙ্গলে সুর্যের দেখা মেলেনি।  আবহাওয়া ছিল হালকা কুয়াশাচ্ছন্ন। তবে  ভোরে ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন ছিল সারা উপজেলা। সুর্যের দেখা না মিলায় শীতের তীব্রতা কিছুটা বেড়ে যায়।

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিসুর রহমান জানান, আজ শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ১২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের আবহাওয়া সহকারি জাহিদুল ইসলাম মাসুম জানান, আজ সুর্যের মুখ দেখা না যাওয়ায় শীতের তীব্রতা বেড়েছে। তাছাড়া মৃদু শৈত্য প্রবাহের কারনেও শীত বেড়েছে। তিনি আরো জানান, কয়েকদিনের মধ্যে শীত আরো বাড়বে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, ১৯৬৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল ২.৮ ডিগ্রি এবং ১৯৬৬ সালের ২৯ জানুয়ারি সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৩.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে ১৯৯৫ সালের ৪ জানুয়ারি,  ২০০৭ সালের ১৭ জানুয়ারি, ২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারি শ্রীমঙ্গলে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আছাদুজ্জামান জানান, ইতোমধ্যে শ্রীমঙ্গল উপজেলার শীতার্ত মানুষের মাঝে বিতরনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রান ভাণ্ডার থেকে ৪ হাজার ৬৮০ টি কম্বল বরাদ্দ পাওয়া গেছে।

 তাছাড়া দুর্যোগ ব্যবস্হাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয় থেকে ১ হাজার ১১১ টি কম্বল বরাদ্দ এসেছে। যা ইতোমধ্যে উপজেলার শীতার্ত মানুষের মাঝে বিতরন করা  হয়েছে।

এদিকে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন  উপজেলার বিভিন্ন স্হানে শীতবস্ত্র বিতরন করছে।