সম্পাসী (২) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: সম্পাসী (২) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনীমা রাণী দে এর অবসরত্তোর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান গত ২ জানুয়ারি রোজ বৃহস্পতিবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহযোগিতায় ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আয়োজনে মো: ইকবাল হোসাইন ও রুহুল আমিন এর উপস্থাপনা ও পরিচালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জনাব আবু আহমদ ফিরুজ মিয়া।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি জনাব আকবর আলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার জনাব আরতী ব্যানার্জী, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি জনাব গিয়াস উদ্দিন ও বিদ্যালয় অভিভাবক কমিটির সভাপতি জনাব শফিকুর রহমান।

অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চাঁদনীঘাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাধারন সম্পাদক জনাব সৈয়দ মসাহিদ আলী, কামালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সভাপতি জনাব আপ্পান আলী, মমরুজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, খোলাফায়ে রাশেদিন ইসলামি সমাজকল্যাণ সংস্থার পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান ভুট্টু ও এলাকার মুরব্বিয়ান সহ বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।

অনুষ্টান শুরু হওয়ার পূর্বে প্রধান অতিথি ও বিদায়ী প্রধান শিক্ষক কে ফুল দিয়ে বরণ করেন সভাপতি জনাব আবু আহমদ ফিরুজ মিয়া। অনুষ্ঠানের শুরুতে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী বদরুল আমিন ফাহিম পবিত্র কোরআন থেকে সূরা ফাতিহা ও সুজয় দাশ গীতা পাঠ করেন। এরপর সবার উপস্থিতিতে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। বিদায়ী শিক্ষকের উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করেন যৌথভাবে প্রাক্তন শিক্ষার্থী নুরুল আমিন রাহিন, সজিব আহমদ ও শাকিল আহমদ।

মানপত্রটি পাঠ শেষে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা বিদায়ী প্রধান শিক্ষক অনীমা রাণী দে এর হাতে তুলে দেন। এরপর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, প্রবাসী ব্যক্তিবর্গ, আমন্ত্রিত অতিথি বৃন্দ, বিদায়ী শিক্ষক, প্রধান অতিথি ও সভাপতি বক্তব্য রাখেন। বিদায়ী শিক্ষক তার বক্তব্যে বলেন, দীর্ঘ ২৭ বছর বিদ্যালয় পরিচালনা করতে গিয়ে যদি কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকি তবে তা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। ভবিষ্যতে বিদ্যালয়ের যে কোন কাজে আমার প্রয়োজন হলে আমি আমার সাধ্যমত সহযোগিতা করব। তিনি সবার কাছে দোয়া ও আশির্বাদ কামনা করেন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বিদায়ী শিক্ষকের উদ্দেশ্যে বলেন, দীর্ঘ দিন যাবত শিক্ষকতা করার ফলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে যে সম্পর্ক সৃষ্টি হয়েছে তা দেখে আমি মুগ্ধ। তিনি বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে কথা বলে বাস্তবায়নের আশ্বাস প্রদান করেন। অনুষ্টানে বিদায়ী প্রধান শিক্ষক ও প্রধান অতিথিকে সম্মাননা ক্রেস্টসহ উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। সভাপতির সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্টানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।