সরকারের ঘরে থাকার নির্দেশ গ্রাম গঞ্জে যথাযত মানছেন না!

Exif_JPEG_420

স্টাফ রিপোর্টরঃ  সবাই মিলে ঘরে থাকব, করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাব। সরকারের এই নির্দেশনা তোয়াক্কা না করে মৌলভীবাজার শহরের কুসুম ভাগ এলাকা  থেকে অবাধে সিএজজি চলছে, শহরের আশপাশের ছোট বাজার পূর্বের নিয়মে আগের মতই চলছে, ফলের দোকানে পলিথিন ব্যবহার না করে খোলা আকাশের নিছে ফল বিক্রি কর। বিদেশ থেকে এসে অনেকেই কোয়ারেন্টাইন মানছেন না। এসব বিষয়ের তথ্য নিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের কর্তাদেরকে ফোন দিলে নিছের রাস্তা দেখিয়ে দেন, নিচের দিকে ফোন দিলে হয় ভিজি না হয় সরি।

(শুক্রবার বিকেলে কামাল পুর ইউনিয়নের নতুন ব্রিজ বাজার এর দৃশ্য)

পুলিশের কর্মকর্তারা শহর নিয়ে এত ব্যস্ত ফোন ধরার সময় নাই, ভিট পুলিশ তার ভিটে নাই। চেয়ারম্যান মেম্বারের খবর নাই     তাইলে আমি এখন কই যাই ? কথা গুলো বলেন এই দুর্যোগের সময়ে জনতার পাশে থেকে করোনা ভাইরাসের ভয় না করে গ্রামে গঞ্জে গুড়ে গুরে নিজের জীবন বাজি রেখে  সংবাদ সংগ্রহকারি একজন সংবাদদাতা বা সাংবাদিকের  কথা।

কুসুম ভাগ এলাকায় রাস্তার পাশে ফলের দোকান    করোনা ভাইরাস থেকে দেশের মানুষকে সুরক্ষিত বা সতর্ক রাখতে সরকার ১০ দিনের জন্য দেশের প্রত্যেকটি এলাকার সকল মানুষকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিলেও, এই চিত্র দেখে মনে হচ্ছে সরকারের নির্দেশনা তাদের কাছে পৌঁছেনি। 
শুক্রবার বিকেলে কামাল পুর ইউনিয়নের নতুন ব্রিজ বাজার এর দৃশ্য

গত রাত্রি ৮ঘটিকার দিকে কুসুম ভাগে সিএনজি অটোরিকশার কিছু অসচেতন  ড্রাইভারদেরে সরকারের নির্দেশনা পৌঁছাতে মাত্র ২০০ টাকা জরিমানা করেছেন, প্রশাসনের কর্মকর্তা। তার পরেও অসচেতন  ড্রাইভার গাড়ির মালিক সতর্ক হয় নাই।

শুক্রবার বিকাল ৩ টায় কুসুম ভাগ এলাকায় সিএনজ স্টেন্ডের চিত্র

সরকারের এই জরুরি বার্তা বা নির্দেশনা না মেনে যারা প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছেন, তাদেরকে ২০০ টাকা নয়, ২০০০ টাকা করে ড্রাইভার ও মালিক সমান সমান জরিমানা করা আবশ্যক,  এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে যারা দোকানে ভিড় জমিয়ে যারা মালামাল বিক্রি করছেন, তাদের প্রতি জরিমানা আরোপ করা হউক।

শুক্রবার বিকাল ৩ টায়  বিমান অফিস এলাকায় সিএনজ স্টেন্ডের চিত্র

গ্রামের বাজার বা দোকান গুলোকে কড়া নির্দেশ ও জরিমানার আওতায় না আনলে গ্রাম পর্যায়ে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করার সম্ভাবনা থাকতে   পারে। উপর্যুক্ত বিষয় সরকারের স্থানীয় প্রশাসন জনস্বার্থে দ্রুততম সময়ে সমাধান জাতির জন্য কল্যানকর হবে।

শুক্রবার বিকেলে কামাল পুর ইউনিয়নের নতুন ব্রিজের দুপাশের  দোকান গুলোর দৃশ্য