ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা হারিয়ে যাবে না, উদ্ভাবক বানিয়ে দেশের মূখ উজ্জ্বল করবো- কিবরিয়া।

0
86
স্টাফ রিপোর্টারঃ বাংলাদেশে এই প্রথম বিনা পারিশ্রমিকে প্রথম মৌলভীবাজার জেলা থেকে যাত্রা শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত এস.এ.ও ফাউন্ডেশন এর একটি প্রজেক্ট এস.এ.ও সাইন্স ক্লাব মৌলভীবাজার জেলা কোঅরডিনেটর ক্ষুদে বিজ্ঞানী এস.এম কিবরিয়া।
কিবরিয়া জানান, সরকার অনুমোদিত এস.এ.ও ফাউন্ডেশন এর একটি প্রজেক্ট এস.এ.ও সাইন্স ক্লাবের মাধ্যমে বাংলাদেশে ঝড়ে যাওয়া অনেক ক্ষুদে গবেষক আছেন যারা পরিপূর্ণ সহযোগীতা না পাওয়ার কারনে ঝড়ে যায়, যেমন ছোট থেকে অনেক ছেলে মেয়ে গবেষণা করে আসছে বিভিন্ন বিজ্ঞান মেলায় তাদের উদ্ভাবনীকে নিয়ে প্রদর্শনী করে, কিন্তু যখন এইরকম মেলায় অংশগ্রহন করতে পারবে না তখন এইরকম প্রতিভা একদিন হারিয়ে যাবে, তখন অনেক ওই মাদক এর সাথে জরিত হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। আমাদের সাইন্স ক্লাবে সে যেই হোক না কেনও আমাদের ক্লাব থেকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবে ইনশাআল্লাহ। এবং তাদপরকে তুলে এনে ভালো উদ্ভাবক বানানো ওই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।
কিবরিয়া আরোও জানান, বর্তমানে আমাদের এস.এ. সাইন্স ক্লাবের সাথে কাজ করছেন, ফুরকান নুছরুল্লাহ, মোঃ জায়েফ আহমদ, শুভ দেব, মোঃ তানভীর আহমদ, শেখ মিফতা,মোঃ আব্দুস সামাদ, মোঃ শামিম আহমদ,
এস.এ.ও ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান, শিব্বির আহমদ উসমানী জানান, SAO Foundation এর মেমোরেন্ডাম অফ এসোসিয়েশনের আর্টিকেল ৩ এর ‘জি’ এর ক্ষমতা বলে এক্সিকিউটিভ কমিটি ‘এস.এ.ও সাইন্স ক্লাব – SAO Science Club’ নামে একটি প্রজেক্ট অনুমোদন করা হয়েছে। এ প্রজেক্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন উদ্ভাবনে সহযোগিতা পাবে। এর আওতায় ক্ষুদে উদ্ভাবকদের ট্রেনিং, পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা দেওয়া হবে। ক্ষুদে উদ্ভাবকদের নিয়ে বিভিন্ন সেমিনার, সিম্পোজিয়াম করা হবে। ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবনী গুলো প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে। এস.এ.ও সাইন্স ক্লাবের কার্যক্রম চালু করার জন্য অফিস দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন, জনাব, মোঃ শাফি আলম, প্রতিষ্ঠাতা ও প্রিন্সিপাল – এম মছলন মিয়া কেজি এন্ড হাই স্কুল।